২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | ১৭ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

সংবাদ শিরোনামঃ
বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে এমপি রনজিত সরকার সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পূর্ব তেঘরিয়া বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ।  বিশ্বম্ভরপুরে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করছেন এমপি ড. মোহাম্মদ সাদিক অগ্রিম ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন তাহিরপুর থানার ওসি মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন। প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ৫ম পর্যায়ের ২য় ধাপে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন উপলক্ষ্যে প্রেস ব্রিফিং সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান পদে চপল পুনরায় জয়ী।  তাহিরপুরে দুপুর গড়ালেও খোলা হয়নি বিদ্যালয়ের তালা সাংবাদিকদের গালিগালাজ করেন সহকারী শিক্ষক তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ঃ চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান আলমগীর খোকন ও মহিলা ভাইস আইরিন বিজয়ী তাহিরপুরে ৯৮ ভাগ ধান কাটা সম্পন্ন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক হিসেবে নিয়োগ পেলেন ড,আতাউল গনি সাবেক এমপি নজির হোসেনের মৃত্যু সবাই সচেতন থাকলে দেশ এগিয়ে যাবেই- তথ্য কমিশনার প্রকৃতির সঙ্গে যারা অপকর্ম করছেন, তাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করতে হবে–সুলতানা কামাল সুনামগঞ্জ -১ বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন রনজিত সরকার সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা  ইউ এন ও এর সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময়।  বিশ্বম্ভরপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত নানান কর্মসূচিতে তাহিরপুরে বিজয় দিবস পালিত সুনামগঞ্জে বাউল কামাল পাশার ১২২তম জন্মবার্ষিকী পালিত তাহিরপুরে হানাদার মুক্ত দিবস পালিত যাদুকাটা নদীতে দুই নৌকার সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৩
সুনামগঞ্জে নদ নদীর পানি বৃদ্ধিতে হুমকির মুখে শতাধিক বাধঁ,দুশ্চিন্তায় কৃষকরা

সুনামগঞ্জে নদ নদীর পানি বৃদ্ধিতে হুমকির মুখে শতাধিক বাধঁ,দুশ্চিন্তায় কৃষকরা

লতিফুর রহমান রাজু, সুনামগঞ্জ:

গত দুই দিনে সুনামগঞ্জ জেলার সুরমানদীর পানি দ্রুতই বৃদ্ধি পেয়েছে। সীমান্তের নদ নদীর পানি ও বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে হাওরের ফসল আবার ও ঝুকিঁর মধ্যে পড়েছে।

রবিবার ভোর রাত থেকেই তাহিরপুর উপজেলার টাংগুয়ার হাওরের বর্ধিত গুরমার হাওরের বাঁধ উপচে পানি হাওরে ঢুকছে। উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান খসরুল আলম বলেন বিভিন্ন বাঁধ উপচে ও কান্দার উপর দিয়ে পানি ঢুকছে। এভাবে পানি বৃদ্ধি হলে খাওয়াজুরি, নোয়াল, আইননাকলমা, গলগলিয়া,শনি, মাটিয়ান ও টাংগুয়ার হাওরের ফসল তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।এতে কয়েক হাজার হেক্টর জমির ধান ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

তাহিরপুর উপজেলার চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল ও তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রায়হান কবির জানান । দিনরাত পরিশ্রম করে এখন পর্যন্ত বাধঁ ঠিক আছে এই ধাক্কা সামলে উঠতে পারলে ইনশাল্লাহ আর কোন বিপদের আশঙ্কা থাকবেনা। ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধ গুলোর উপর ও পাশে বাশঁ, বস্তা চাটাই, জিও ব্যাগ দিয়ে আরও মজবুত করার চেষ্টা অব্যাহত আছে।

শান্তিগঞ্জ উপজেলার দরগা পাশা ইউনিয়নের কাছির গাতি হাওরের বাঁধের উপর দিয়েই পানি প্রবেশ করার ফলে এলাকার জনপ্রতনিধি, প্রশাসন ও কৃষকদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় রক্ষা হয়েছে। খাই হাওর পাড়ের জালোবাড়ি বাঁধ ও হুমকির সম্মুখিন। এ বাঁধ গুলো ভাঙ্গলে ফসলের প্রচুর ক্ষতি হবে।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিউর রহিম জাদীদ জানান এই কদিনে অন্তত ৪০ ভাগ ধান কর্তন শেষ হয়েছে। নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বাধঁ গুলো আবার ঝুকিঁর মধ্যেই আছে। নতুন করে আর কোন বাঁধ ভাঙ্গেনি।

ধর্ম পাশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনতাসির হাসান জানান উপজেলা প্রশাসন, পাউবো ও কৃষকদের নিয়ে দিনরাত বাঁধ রক্ষার কাজ করছি। গত কদিন ভালই ছিল। নদ নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে হাওরে পড়ছে তাই বাঁধ গুলো ঝুকিপূর্ণ হচ্ছে। জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিত দেব জানান সুরমা নদীসহ অন্যান্য পাহাড়ি নদীর পানি দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে

উপজেলার পাগনার হাওর, হালির হাওর, মিনি পাগনার হাওরের ক্লোজার সমুহের নিরাপত্তা ঝুকিঁ যাচাই করা হচ্ছে। বোগলা খালি ক্লোজার হাওরের সাইডে বালু ভরাট ও জিও ব্যাগ ফেলে অধিকতর মজবুত করার কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে সবাই ঐক্যবদ্ধ ভাবে দিনরাত পরিশ্রম করছি। নান্টুখালি ক্লোজার দিয়ে পানি চুইয়ে প্রবেশ করছে। প্রচন্ড হুমকির মধ্যে আছে।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী ১ মো জহুরুল ইসলাম বলেন সুরমা নদীর পানি ৫, ৮৭ মিটার। গত ২৪ ঘন্টায় ৪০ মিটার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।সীমান্ত নদী জাদুকাটার ৭১ সেন্টিমিটার, পাঠলাই নদীর পানি ৪৩ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় সুনামগঞ্জে ১৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

তবে এভাবে যদি ঢল নেমে পানি বৃদ্ধি পায় তাহলে বাঁধের ক্ষতি হবে। তিনি আরও বলেন ভারতের মেঘালয় রাজ্যের চেরা পুঞজি সহ অন্যান্য স্থানে ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে আর সেই ঢলের পানি প্রবেশ করে ফসল রক্ষাবাঁধের সর্বনাশ করছে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেছেন,সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর, জামালগঞ্জ, জগন্নাথপুর, ছাতক,শান্তিগঞ্জ ও ধর্ম পাশা উপজেলার বিভিন্ন হাওরের ফসল রক্ষাবাঁধের উপর দিয়ে পানি প্রবেশ করছে। তবে এখন পর্যন্ত কোন বাঁধ ভাঙ্গেনি, ফসল ও তলিয়ে যায়নি।

প্রতিটি হাওরেই এডিসি ও ইউএনও গণ পাউবোর কর্ম কর্তা গণ ও হাওর পাড়ের কৃষক গণ বাধঁ রক্ষার জন্য প্রাণপন লড়াই করছেন। এমনকি নৌকার মধ্যেই রাত কাটাচ্ছেন। আমরা নিদের্শনা দিয়েছি ৮০ ভাগ ধান পাকা হলেই যেন কর্তন করা হয়। ইতিমধ্যেই অনেক জায়গাতেই ধান কাটার ধুম লেগেছে। দিন যতই যাচ্ছে ধান কাটা ও তত বাড়ছে। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সাহায্য সহায়তার ব্যবস্থা করা হয়েছে আরও করা হবে।

এদিকে হাওর পাড়ের কৃষক দের চলমান হাওর রক্ষাবাঁধের কাজ নিয়ে নানা অভিযোগ রয়েছে তাদের মতে সরকার কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ দেয় পিআইসিদের কিন্ত পিআইসি নামধারী প্রভাবশালীরা বাঁধ নির্মান ও রক্ষার দায়িত্ব নিয়েই বাঁধ রক্ষায় নামে রক্ষক হয়ে ভক্ষক হয়ে যায়। দায়সারা কাজ করায় আগাম পাহাড়ী ঢলে বাঁধে ফাটল ও ধসে পড়ায় সুনামগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলা বোরো ফসলের ১৫ হাওর ডুবে ২০ হাজার হেক্টর বোরো জমি পানিতে তলিয়ে গেছে। । একমাত্র বোরো ফসল হারিয়ে কৃষক ও তাদের পরিবার হাহাকার বিরাজ করছে। শনির হাওর পাড়ের কৃষক আরিফ মিয়া জানান,ফসল ডুবির পর যে বাঁধ গুলো আশা জাগিয়ে রেখেছে সেগুলোতেও ফাটল ও ধসে পড়ায় হাওরপাড়ের কৃষক পরিবার গুলোর মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। আর বাঁধ রক্ষায় রাত জেগে পাহারা দেওয়াসহ বাঁধ টিকিয়ে রাখতে কাজ করছে পাউব কৃষক,শ্রমিক আর প্রশাসন। বাঁধ ভেঙ্গে কৃষকের ক্ষতি হলেও পিআইসি নামধারী প্রভাবশালীরা রাজনৈতিক দলের নেতারা প্রকল্প নিয়ে সরকারি টাকা লুটপাট করে লাভবান হয়েছে। হাওরের ব্যাপক ফসলহানির পুনরাবৃত্তি যে কোনো উপায়ে ঠেকাতে হবে। না হলে হাওর পাড়ের কৃষকদের কষ্টের শেষ থাকবে না বলে জানান,হাওর বাঁচাও আন্দোলন নেতা ও হাওরাঞ্চলে কৃষক ও কৃষির সাথে সম্পর্কিতরা। তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক,বৃহত্তর শনির হাওরের পাড়ের কৃষক হাবিবুর রহমান খেলু বলেন,হাওরে উৎপাদিত একমাত্র বোরো ধান এখনও ঝুঁকির মুখে। কিছু কিছু হাওরে বোরো ধান কাটা শুরু হলেও তা একেবারেই সামান্য। সময় মত ও সঠিক ভাবে বাঁধে কাজ না করায় দূর্বল বাঁধের কারনে বাঁধ ভাঙ্গার শংকা যেন কাটছেই না। বাঁধ নির্মান করল পিআইসি আর এখন বাঁধ টিকিয়ে রাখছে কৃষক,শ্রমিক আর প্রশাসন।

উল্লেখ,বাঁধ নির্মানে অনিয়ম ও দুনীতির তদন্তের জন্য জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর হোসেন একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছেন।এই কমিটি আগামী ২৫ এপ্রিলের মধ্যে রিপোর্ট দেবে।এদিকে পানি সম্পদ মন্ত্রনালয় থেকেও ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।

 

শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন





পুরাতন খবর খুঁজুন

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

আজকের দিন-তারিখ

  • রবিবার (রাত ১:৪৯)
  • ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৭ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি
  • ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল)